সোমবার, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
আজ সোমবার | ২৫শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বোয়ালখালীতে ব্যবসায়ীর দোকান ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ

সোমবার, ০৪ জানুয়ারি ২০২১ | ১:০০ অপরাহ্ণ | 80Views

বোয়ালখালীতে ব্যবসায়ীর দোকান ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ

বোয়ালখালী প্রতিনিধিঃ
বোয়ালখালীতে জায়গা নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় দোকান ভাঙচুর ও লুটপাট করে ৪ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ হয়েছে।
ভাঙচুর ও লুটপাটের খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

সোমবার (৪ জানুয়ারী) থানায় ভুক্তভোগী মোহরম আলী বাদী হয়ে পশ্চিম শাকপুরা এলাকার মৃত আনু মিয়ার ছেলে নুর মোহাম্মদ (৫২), চরখিজিরপুর এলাকার মোঃ ইসমাইলের ছেলে মোঃ রুস্তম আলী(৩২) ও মৃত ইসলাম আহমদের ছেলে মোঃ ইসমাইল (৫৫) নামের অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে,বর্ণিত বিবাদীদের সহিত দীর্ঘদিন যাবত জায়গা জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিরোধ চলিয়া আসিতেছে। বোয়ালখালী থানাধীণ পশ্চিম শাকপুরা সাকিনস্হ চৌমুহনী বাজারে “শাহ আমানত ট্রের্ডাস” নামে একটি মুদির দোকান এবং একটি সেলুন এবং একটি বাইসাইকেল গ্যারেজ আছে। গত ২৭/০৬/২০২০ ইং তারিখ সকাল ০৮.৩০ ঘটিকার সময় বর্ণিত বিবাদীসহ তাহার সহযোগী অপরাপর বিবাদীরা আমাকে মারধর করিলে আমি বাদী হইয়া বোয়ালখালী থানার মামলা নং- ১৭, তারিখ – ১৮/০৮/২০২০ ইং ধারা -১৪৩/ ৩৪১/৩২৩/৩২৪/৩২৫/৩০৭/৩৭৯/৫০৬ দঃ বিঃ দায়ের করি। উক্ত মামলাটি বিবাদীদের বিরুদ্ধে দায়ের করার পর হইতে বিবাদীরা বিভিন্ন তারিখ ও সময়ে আমাকে উক্ত মামলাটি প্রত্যাহার করার জন্য বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধমকি প্রদর্শন করাসহ বেশ কয়েকবার মারধরের জন্য উদ্দ্যত হয়। এরই ধারাবাহিকতায় গত ০৩/০১/২০২১ ইং তারিখ রাত ০২.৫০ ঘটিকার সময় আমি আমার মালিকানাধীন বর্নিত দোকান সমূহ বদ্ধ করিয়া নিজ বাড়ীতে চলিয়া গেলে বিবাদীরা সে সুযোগে আমাকে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করার জন্য আমার বর্ণিত দোকান সমূহ ভাংচুর করিয়া মূল্য অনুমান ৪ লক্ষ টাকার ক্ষতিসাধন করে এবং দোকানে থাকা ২০ টি ময়দার বস্তা, দুধের কার্টুন ১৮০ টি, ০১ ড্রাম সয়াবিন তৈল যাহার সর্বমোট বাজার মূল্য ৪ লক্ষ টাকা হইবে নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে মহরম আলী জানান, সম্পূর্ণ বেআইনীভাবে নুর মোহাম্মদের নেতৃত্বে এ ভাংচুর ও লুটপাট চালানো হয়েছে। আমি দোকান বন্ধ করে বাড়িতে গেলে সে সুযোগে লুটপাট চালাই দারোয়ান খবর দিলে আমি দ্রুত ঘটনাস্থলে আসার আগে লুটপাট করে সব নিয়ে যায় প্রায় ৪ লক্ষধিক টাকার ক্ষতি হয়। আমি এর সুষ্ঠ বিচার চাই।
থানার এসআই সুমন দে বলেন, ওই জায়গা নিয়ে মামলা চলে আসছে এবং আদালতের নিদের্শ আজ্ঞা রয়েছে। ভাঙচুরের ঘটনায় থানায় অভিযোগ হয়েছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  

পেইজবুকে আমরা