বৃহস্পতিবার, ২১শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
আজ বৃহস্পতিবার | ২১শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

লোহাগাড়ায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে পাকা স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ

বুধবার, ০৭ এপ্রিল ২০২১ | ৭:২১ অপরাহ্ণ | 833Views

লোহাগাড়ায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে পাকা স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ

লোহাগাড়া উপজেলার চরম্বায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে পাকা স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে ৭ এপ্রিল বুধবার চরম্বা জান মোহাম্মদ পাড়ার মৃত এমদাদ আলীর পুত্র কবির আহমদ (৭৮) বাদী হয়ে লোহাগাড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে একই এলাকার মৃত আবদুছ ছােবহানের পুত্র আবুল কাশেম (৫০) ওব তাঁর পুত্র ফোরকান আহমদ (৩০), শফিক আহমদ (২৭) এবং সাইফুল ইসলাম (২৫)সহ অজ্ঞাতনামা ৩/৪জনকে বিবাদী করা হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে প্রকাশ,
কবির আহমদের সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিবাদীদের সাথে জায়গা-জমি নিয়ে বিরােধ চলছে। এব্যাপারে কবির আহমদ চট্টগ্রাম অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি অপর মামলা ( নং-১৩৭১/২০২০ ইং) মামলা দায়ের করেছেন । আদালত গত ২০ ফেব্রুয়ারী বিবাদীগণের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা প্রদান করে। কিন্তু বিবাদীরা আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে গত ৭ এপ্রিল সকাল থেকে বহিরাগত লোকজন নিয়ে বিরোধীয় জায়গায় জোর পূর্বক পাকা স্থাপনা নির্মাণের কাজ চালাচ্ছে। অভিযোগের বাদী কবির আহমদ বলেন, চরম্বা মৌজার বিএস ৩৬৫নং খতিয়ানের বিএস ৫২৪৬ দাগের ২৩ শতক বা এগার গন্ডা দুই কড়া জায়গা নিয়ে বিবাদীদের বিরােদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। বিবাদীরা বারবার জোরপূর্বক বিরোধী য় জায়গা দখল করা পায়তারা চালাচ্ছে। তাই আমি মহামান্য আদালতে মামলাও করেছি। আদালত বিবাদীদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞাও দিয়েছে। কিন্তু তারা আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোরপূর্বক পাকা স্থাপনা করে জায়গা দখল করতে চেষ্টা চালাচ্ছে। আমি এ ব্যাপারে স্থানীয় এমপি,উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

এব্যাপারে অভিযুক্ত আবুল কাশেম বলেন, কবির আহমদ আমার চাচা হয়। তাই আমার পিতা ও কবির আহমদ একই খতিয়ানের জায়গার মালিক। পারিবারিকভাবে আপোষনামার মাধ্যমে আমি বর্তমান বিরোধীয় জায়গা দীর্ঘদিন ধরে ভোগ দখলে আছি। অন্যদিকে একই আপোষনামা মূলে কবির আহমদও অন্যদিকে তাদের প্রাপ্য জায়গা ভোগ দখলে আছে। আমি মৌরশীমূলে প্রাপ্ত এবং দীর্ঘদিনের দখলীয় জায়গায় স্থাপনা নির্মাণ করতে চাইলে তারা আমাকে হয়রানি করার জন্য আদালতে মামলা করে। আদালত এ ব্যাপারে দখল বিষয়ক প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য উপজেলা সহকারী কমিশনার ( ভূমি)কে নির্দেশ দেয়। আদালতের নির্দেশ পেয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার ( ভূমি) সার্ভেয়ার দিয়ে সরেজমিন পরিদর্শন এবং স্থানীয়দের সাক্ষ নিয়ে গত ৩ মার্চ আদালতে একটি প্রতিবেদনে দেন। যেখানে উক্ত জায়গা দীর্ঘদিন ধরে আমার দখলে আছে বলে স্পষ্ট উল্লেখ করেছেন।

এ বিষয়ে লোহাগাড়া থানার থানার ডিউটি অফিসার এসআই মোঃ দেলোয়ার জানান,কবির আহমদের একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি আদালতে মামলা চলমান রয়েছে। তাই মহামান্য আদালত বিষয়টির সমাধান দিবেন। তাছাড়া বিরোধীয় জায়গা নিয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার ( ভূমি) আদালতে একটি প্রতিবেদনও দিয়েছেন। তবে আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় থানা পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা নিবেন বলে তিনি জানান।

-Advertisement-
Recent  
Popular  

Our Facebook Page

-Advertisement-
-Advertisement-