সোমবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
আজ সোমবার | ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চকরিয়ায় লকডাউনে প্রশাসনের সাথে চোর পুলিশ খেলা, মানছে না কেউও স্বাস্থ্যবিধি 

রবিবার, ০৪ জুলাই ২০২১ | ৬:৪৩ অপরাহ্ণ | 160Views

চকরিয়ায় লকডাউনে প্রশাসনের সাথে চোর পুলিশ খেলা, মানছে না কেউও স্বাস্থ্যবিধি 
পৌর শহরে কাঁচাবাজার সড়কের দৃশ্য
নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
কক্সবাজারের চকরিয়ায় করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রাণঘাতী বিস্তার ঠেকাতে সরকার ঘোষিত সর্বাত্মক লকডাউনের মানছেন না কেইও। লকডাউনের চতুর্থ দিনে রাস্তায় মানুষের চলাচল যেমন বৃদ্ধি পেয়েছে তেমনি চলছে ব্যবসা বাণিজ্যও। উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ শহরে টহল দিলেও মানুষ কোন কিছুর তোয়াক্কা করছে না।
রবিবার (৪ জুলাই) সরজমিনে পৌর শহর ও উপজেলার কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখাগেছে, পৌরবাজারসহ সবগুলো কাঁচাবাজারে মানুষের উপচে পড়া ভিড় ছিল। সেখানে সামাজিক দূরত্বের কোনো বালাই নেই। বাজারে আসা অধিকাংশ মানুষের মুখে ছিল না মাস্ক। মহাসড়কে প্রধান রাস্তাগুলো অনেকটা জনশূন্য দেখা গেলেও পাড়া-মহল্লার চিত্র পুরোপুরি ভিন্ন। চায়ের দোকানে জটলা পাকিয়ে আড্ডা চলে গলির মোড়ে। পুলিশের টহল গাড়ি দেখলেই সবাই আড়ালে চলে যায়। কিছুক্ষণ পর আবার আগের অবস্থা। করোনা মহামারির এই দুঃসময়ে সামাজিক দূরত্ব না মানায় আড্ডাবাজ এসব মানুষ নিজেরা যেমন ঝুঁকিতে পড়ছেন, তেমনি ঝুঁকিতে ফেলছেন পরিবারসহ আশাপাশের অন্যদের। তাছাড়া অধিকাংশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অর্ধেক অংশ খুলে রেখে ভিতরে চলছে বেচাকেনা। অনেকের মুখে মাস্ক নেই, নেই কোন সামাজিক দূরত্ব। রাস্তায় বাড়ছে মানুষের ভিড়। প্রতিটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও সড়কের গলির সামনে একজনকে দাঁড় করিয়ে দায়িত্বে রাখা হয়েছে। এদের দায়িত্ব হলো প্রশাসন বা পুলিশের গাড়ী বা কর্মকর্তারা আসছেন কিনা তা দেখা। তাদের দেখলেই সাথে সাথে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ করে দেয়া হয়। প্রশাসন বা পুলিশের গাড়ী ও লোকজন চলে গেলে কিছুক্ষণ পর আবার ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অর্ধেক অংশ খুলে দেয়। দোকান খোলা আর বন্ধের এমন লুকোচুরি নিয়ে উপস্থিত অনেকেই রসিকতা করে চোর- পুলিশ খেলার সাথে তুলনা করছেন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক পৌরশহরে ব্যবসায়ীরা বলেন, আমরা সরকারের লকডাউন মেনে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখলে কি হবে। অনেকেই দোকানের সাটারের অর্ধেক খুলে রেখে ব্যবসায়ীক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। তাই দিন যত সামনে যাচ্ছে দোকান খোলার সংখ্যা তত বৃদ্ধি পাচ্ছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ শামসুল তাবরীজ মুঠোফোনে সকলকে সচেতন হওয়া ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহবান জানিয়ে বলেন, সর্বাত্মক করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে সরকারি নির্দেশনা পুরোপুরি বাস্তবায়ন করতে প্রশাসন চেষ্টা চালাচ্ছে। সরকার ঘোষিত লকডাউন যারা মানবেনা তাদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যহত থাকবে বলে জানান।
-Advertisement-
Recent  
Popular  

Our Facebook Page

-Advertisement-
-Advertisement-