বৃহস্পতিবার, ১৯শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
আজ বৃহস্পতিবার | ১৯শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

চকরিয়ায় আবাসিক হোটেল নামে চলতেছে অনৈতিক কার্যকলাপ

মঙ্গলবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২২ | ৬:৩৫ অপরাহ্ণ | 390Views

চকরিয়ায় আবাসিক হোটেল নামে চলতেছে অনৈতিক কার্যকলাপ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

কক্সবাজারের চকরিয়ায় শহরে অলিতে গলিতে ব্যাঙের ছাতার মত গড়ে উঠেছে আবাসিক হোটেল। পৌরশহরে ওসান সিলভার আবাসিক হোটেলে অসামাজিক কার্যকলাপ চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয়দের দাবি প্রশাসনকে ফাকি দিয়ে সেখানে অবাধে চলছে দেহ ব্যবসা। দীর্ঘদিন ধরে এমন অবৈধ ব্যবসা করার অভিযোগ রয়েছে এই হোটেল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে।

চকরিয়া পৌরসভা চিরিংগা কাঁচা বাজার রোড গার্লস হাই স্কুলের সামনে ওসান সিটি মার্কেটে তৃতীয় তলায় ওসান সিলভার আবাসিক হোটেল এ আবাসিক হোটেলের নামে পরিচিতি থাকলেও দীর্ঘদিন ধরে তার আড়ালে চলে আসছে অনৈতিক কাজ। সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে দীর্ঘদিন এই ব্যবসা করে আসছে। 

জানা যায়, পৌর শহরের ওসান সিলভার আবাসিক হোটেলতে দিনরাত চলছে দেহব্যাবসা প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় হোটেল পরিচ্ছন্ন কর্মীর নাম করে প্রতিদিন বিভিন্ন বয়সের নারীদের হোটেলে রেখে দীর্ঘদিন ধরে এই অসামাজিক কার্যকলাপ চলছে। তবে স্থানীয় প্রশাসনের রহস্যজনক নীরব ভূমিকায় প্রশ্ন উঠছে সবার মনে। এছাড়াও প্রেমিক প্রেমিকাকে হোটেলে কথা বলার জন্য আশ্রয় দিয়ে ও লোভ দেখিয়ে লোকজনকে হোটেলে নিয়ে গ্রেফতারের ভয় দেখিয়ে আটক বাণিজ্যসহ অসামাজিক কাজ করাতে বাধ্য করা হয় বলেও অভিযোগ উঠেছে। 

সরজমিনে বাস্তবে এমন চিত্র দেখা গেছে, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছাত্রী ও মধ্যবিত্ত পরিবারের গৃহ বধূরা আসে। অভিজাত পরিবারের স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছেলে-মেয়েরাও হোটেলে সময় কাটায়। প্রতি ঘণ্টা রুম ভাড়া নেয়া হয় এক হাজার থেকে দেড় হাজার টাকা। আবার সারারাত কাটালে দুই হাজার থেকে তিন হাজার টাকা দিতে হয়। বেশ কয়েকবার পুলিশ ওসান সিলভার আবাসিক হোটেল অভিযান চালিয়ে পতিতা ও খদ্দেরসহ হাতেনাতে ধরে থানায় নিয়ে জেলহাজতে প্রেরণ করে। কিছুদিন বন্ধ থাকার পর অদৃশ্য ক্ষমতার জোরে আবাসিক হোটেলটিতে আবারও অবৈধ কর্মকাণ্ড শুরু হয়। হোটেলে রাতদিন অবৈধ এসব কর্মকাণ্ড চললেও যেন দেখার কেউ নেই। প্রকাশ্যে এ ধরণের কর্মকাণ্ডে স্থানীয় ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী মাঝে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়।

নাম না বলা অনিচ্ছুক ওসান সিটি মার্কেট এক ব্যবসায়ী বলেন, চকরিয়া প্রায় সময়ে প্রশাসনের অভিযান চালিয়ে অনৈতিক কাজে লিপ্ত থাকায় অনেকবার আটক করে হয়। আটক করা পর ও হোটেল মালিক কিংবা ম্যানেজার সতর্ক হয়নি কোন সময়। পৌর শহরে প্রায় ১০-১৫টির মতো আবাসিক হোটেলে এসব অসামাজিক আর অনৈতিক কার্যকলাপ চলছে দিবা-রাত্র বেলায়। অপর দিকে রেস্টুরেন্টে যা চলে তা বলা বাহুল্য। নিরিবিলি কেবিন আর মৃধু আলো যেন কাপড়চোপর নষ্ট করে দেন। এখানে স্কুল কলেজ টাইমে কোমলমতিদের উঠানামা বেশী। হোটেলের ম্যানেজার কিংবা মালিক প্রশাসনের কারো না কারো পরিচয়ে মাসে মাসে টাকা দিয়ে এসব অসামাজিক কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছে দাপটের সাথে।

এদিকে ওসান সিলভার আবাসিক হোটেলটি স্থায়ীভাবে বন্ধ করতে ও সিলগালাসহ অবৈধ কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশ করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানান স্থানীয় সচেতন মহল ও ওসানসিটি মার্কেটে ব্যবসায়ীরা।

-Advertisement-
Recent  
Popular  

Our Facebook Page

-Advertisement-
-Advertisement-